বাংলাদেশ ক্রিকেট

প্রথমবারের মতো বিপিএলের ফাইনালে উঠলেন মুশফিকুর রহিম

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ বিপিএলের ফাইনাল খেলার গৌরব অর্জন করলেন মুশফিকুর রহিম। বিপিএলে এর আগে একাধিক দলের হয়ে খেলেছেন মুশফিক। কখনো রাজশাহীর হয়ে কখনো সিলেটের হয় কখনো বা চট্টগ্রামের হয়ে। তবে এবার তিনি খেলছেন খুলনা টাইগার্সের হয়ে।

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ফাইনালে উঠে গেছে খুলনা টাইগার্স। মোহাম্মদ আমিরের ভয়ঙ্কর ফাস্ট বোলিংয়ের কল্যাণে প্লে-অফে পাওয়া প্রথম সুযোগটা কাজে লাগিয়ে প্রথমবার বিপিএলের ফাইনালে উঠল খুলনা বিভাগের দলটি।

গতকাল মিরপুর স্টেডিয়ামে প্রথম কোয়ালিফায়ারে রাজশাহী রয়্যালসকে ২৭ রানে পরাজিত করেছে খুলনা। বিপিএলে প্রথমবার ফাইনালে খেলার স্বাদ পাচ্ছেন মুশফিকুর রহিমও।

গতকাল হারলেও ফাইনালে যাওয়ার সুযোগ থাকছে রাজশাহীর। আগামীকাল দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের মুখোমুখি হবে আন্দ্রে রাসেলের দল।

খুলনার পুঁজিটা বড়ো ছিল না। মোহাম্মদ আমিরের দুরন্ত ফাস্ট বোলিং সেই ঘাটতি পূরণ করে দিয়েছে। প্রথম স্পেলে ৩ ওভারে ১২ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে প্রতিপক্ষের ব্যাটিং মেরুদণ্ড ভেঙে দেন আমির। এদিন বিপিএলের ইতিহাসে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড গড়েন তিনি। বাঁ-হাতি এই পেসার ১৭ রানে নেন ৬ উইকেট।

রান তাড়া করতে নেমে ২০ ওভারে ১৩১ রানে অলআউট হয় রাজশাহী। শুরুতে ৩৩ রানে ৬ উইকেট হারিয়েছিল দলটি। তবে একপ্রান্ত আগলে লড়াই করে গেছেন শোয়েব মালিক।

১৮তম ওভারে আউট হওয়ার আগে ৫০ বলে ৮০ রান (১০ চার, ৪ ছয়) করেন তিনি। তাইজুল ১২, আফিফ ১১, কামরুল ইসলাম রাব্বি অপরাজিত ১১ রান করেন। মিরাজ ২টি, শহীদুল-ফ্রাইলিঙ্ক ১টি করে উইকেট নেন।

এর আগে নাজমুল হোসেন শান্তর হাফ সেঞ্চুরিতে ৩ উইকেটে ১৫৮ রান তুলেছিল খুলনা। শান্ত ৫৭ বলে ৭৮ রান (৭ চার, ৪ ছয়) করে অপরাজিত ছিলেন। শামসুর রহমান ৩২, মুশফিক ২১, নাজিবউল্লাহ অপরাজিত ১২ রান করেন। রাজশাহীর ইরফান ১৩ রানে ২ উইকেট নেন।