August 13, 2020
বাংলাদেশ ক্রিকেট

বাংলাদেশের সেরা ৩ জন ফিল্ডার নির্বাচিত করলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ

ক্রিকেটে ফিল্ডিং এর জন্য তেমন একটি প্রশংসিত নয় বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। তারপরও বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলে রয়েছেন বেশ কয়েকজন দুর্দান্ত ফিল্ডার। যার মধ্যে নাসির হোসেন, সাব্বির রহমান, তামিম ইকবাল, জুনায়েদ সিদ্দিক, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত অন্যতম।

তবে চারটি ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশ জাতীয় দলের সেরা ফিল্ডার নির্বাচিত করলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। চারটি ক্যাটাগরি হলো স্লিপ, ৩০ গজ বৃত্তে, বাউন্ডারি সীমানায় এবং সব মিলিয়ে সেরা। চার ক্যাটাগরিতে ৩ জন ক্রিকেটারকে বেছে নিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।





এরমধ্যে স্লিপে জুনায়েদ সিদ্দিক, ৩০ গজ বৃত্তের মধ্যে নাসির হোসেন এবং বাউন্ডারি সীমানা ও সব মিলিয়ে সেরা ক্যাটাগরিতে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ রেখেছেন তামিম ইকবালকে। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর এক সাক্ষাতকারে এ কথা বলেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

জুনায়েদ সিদ্দিক – স্লিপে: বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের এই ওপেনার ব্যাটসম্যান কে স্লিপ এর জন্য আদর্শ ফিল্ডার বললেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। এমনকি জুনায়েদকে স্লিপে দাঁড়াতে দেখলে বোলাররা একটু বেশী সাহস পায় বলে জানিয়েছেন তিনি। জুনায়েদকে ক্যাচ ছাড়তে খুব কমই দেখেছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

জুনায়েদ সিদ্দিকের প্রশংসা করে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন, “স্লিপে সেরা জুনায়েদ সিদ্দিক। সহজাত স্লিপ ফিল্ডার আমরা খুব বেশি পাইনি। জুনায়েদ সহজাত স্লিপ ফিল্ডার। ওর হাত খুব ভালো। রিফ্লেক্স ভালো। স্লিপ ফিল্ডিংয়ে আত্মবিশ্বাস খুব জরুরি, জুনায়েদের নিজের ওপর বিশ্বাস প্রবল।”

“জাতীয় দলে যতদিন খেলেছে ও, খুব ভালো ছিল স্লিপে। ওর ওপর এই ভরসা আমাদের থাকত যে বেশির ভাগ ক্যাচই ধরে ফেলবে। স্লিপে কে কতটা ভালো, এটার ভালো একটা মানদণ্ড বোলারদের আস্থা। জুনায়েদকে স্লিপে দেখলে বোলাররা ভরসা পেত। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট হোক বা ঘরোয়া, স্লিপে জুনায়েদকে ক্যাচ ছাড়তে কমই দেখেছি।”

নাসির হোসেন – ৩০ গজ বৃত্তে: বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফিল্ডার হিসেবে ধরা হয় অলরাউন্ডার নাসির হোসেন কে। বিশেষ করে ৩০ গজের মধ্যে নাসির হোসেনের কাছ থেকে ফিল্ডিং মিস খুব কমই হয়েছে। শুধু তাই নয় অসাধারণ অনেকগুলি ক্যাচ ধরেছেন তিনি। তাই ৩০ গজ ভেতর নাসির হোসেনকে সেরা ফিল্ডার হিসেবে মনে করেন টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।

নাসির হোসেনকে নিয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন, “বৃত্তের ভেতর অনেক ভালো ফিল্ডার আমরা পেয়েছি। একজনকে বাছাই করার কথা বললে সবার চেয়ে এগিয়ে রাখব নাসির হোসেনকে।”

“নাসির খুবই চটপটে। দারুণ ক্ষিপ্র ও গতিময়। বৃত্তের ভেতরে ফিল্ডিংয়ের জন্য অ্যান্টিসিপেশন খুব জরুরি, কারণ বল দ্রুত চলে আসে। নাসিরের অ্যান্টিসিপেশন দুর্দান্ত ছিল। ডাইভিং, থ্রোয়িং, পিক-আপ, রিটার্ন, ক্যাচিং সব ভালো। বৃত্তের ভেতরে একজন আদর্শ ফিল্ডারের যা প্রয়োজন, নাসিরের সবকিছু ছিল।”

“নাসির মাঠে খুব প্রাণবন্ত, বৃত্তের ভেতর এটা খুব প্রয়োজনীয়। অনেক কথা বলে, মজা করে, সবাইকে চাঙা রাখে, উজ্জীবিত করে।”





“তবে আমি বলছি কাঁধের চোটের আগের নাসিরের কথা। ইনজুরির পর কিছুটা সমস্যা হয়েছে ওর। ইনজুরির পরও সেরাদের একজন সে।”

তামিম ইকবাল – সীমানায়: বাউন্ডারি সীমানায় মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের পছন্দ বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবালকে। বাউন্ডারি লাইনে তামিম সেরা বলে মনে করেন তিনি।

তামিম ইকবালকে নিয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বলেন, “কোনো সংশয় ছাড়াই বাউন্ডারিতে সেরা তামিম ইকবাল। ওর ক্যাচিং দুর্দান্ত। বাউন্ডারিতে বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ১০টা ক্যাচের মধ্যে ৫-৬টাই হয়তো তামিমের। ক্যাচগুলো আমার চোখে লেগে আছে। এখানে আর কারও কথা ভাবতে পারছি না।”

“তামিমকে হয়তো খুব গতিময় মনে হবে না। কিন্তু আসল কাজটা ঠিকই করে, ক্যাচ উঠলে অনেক গ্রাউন্ড কাভার করে সে। ক্যাচিংয়ে বরাবরই খুব নিরাপদ। অ্যান্টিসিপেশন ভালো। হ্যাঁ, কিছু ক্যাচ সে ছেড়েছেও, তবে সেসব খেলারই অংশ। সবচেয়ে বড় কথা হলো, বোলারদের জিজ্ঞেস করুন সীমানায় কাকে চায়, সব বোলারই বলবে তামিমের কথা। সেই নির্ভরতার জায়গা সে অর্জন করে নিয়েছে।”

তামিম ইকবাল – সব মিলিয়ে সেরা: বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলে বর্তমানে বেশ কয়েকজন দুর্দান্ত ফিল্ডার রয়েছে। শুধু বর্তমান সময়ে নয় অতীতেও বাংলাদেশ দলে কিছু দুর্দান্ত ফিল্ডার ছিল। যার মধ্যে অন্যতম ছিলেন আফতাব আহমেদ। তবে সব মিলিয়ে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের পছন্দ তামিম ইকবাল।

“একজনকে বাছাই করা খুব কঠিন। পজিশন, সময়, প্রেক্ষাপট-পরিস্থিতি, একেক সময় একেকরকম থাকে। তারপরও, সব মিলিয়ে একজনকে যদি এগিয়ে রাখতেই হয়, তামিমের কথাই বলব।”

“জানি, অনেকেই অবাক হবেন। প্রশ্ন উঠবে। তবে এসব ক্ষেত্রে প্রশ্ন সবসময়ই ওঠে। আমি নিজের ভাবনার কথাই বলছি। তামিম হয়তো স্লিপে একদমই ফিল্ডিং করে না বা বৃত্তের ভেতর থাকে না পাওয়ার প্লে ছাড়া, কিন্তু মাঠের সব পজিশনেই সে নিরাপদ।”





“এখন আফিফ হোসেন খুব ভালো। এককথায় ওকে বলা যায় দুর্দান্ত। অবিশ্বাস্য গতিময়, অ্যাথলেটিক, সবকিছু আছে ওর ভেতর। এটা ধরে রাখতে পারলে সে বিশ্বমানের ফিল্ডার হবে। তবে আরও অনেক দেখতে হবে ওকে, লম্বা সময় স্ট্যান্ডার্ড ধরে রাখতে হবে। আপাতত আমার সেরা তামিম।”

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy