24.5 C
New York
August 5, 2020
বাংলাদেশ ক্রিকেট

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফরে এক প্রকার নিশ্চিত

২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা দলের উপর হামলার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হয় পাকিস্তান। বেশ ক’বছর পর সীমিত আকারে ফেরা শুরু করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কা দল প্রথমে দ্বিতীয় সারির স্কোয়াড দিয়ে খেলে আসে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এখন পুরো শক্তির শ্রীলঙ্কা দলই পাকিস্তানে টেস্ট সিরিজ খেলছে। শ্রীলঙ্কা দলের সফরের মধ্য দিয়ে দশ বছর পর টেস্ট ফেরে বারবার সন্ত্রাসী হামলায় জর্জরিত পাকিস্তানে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর নিয়ে কথা হয়েছে অনেক। তবে এবার এই সফরের ব্যাপারে সরকারের কাছ থেকে ছাড়পত্র পাওয়ার সম্ভাবনা দেখছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান। গতকাল বোর্ড প্রধান জানান তিন-চারদিনের মধ্যেই বিষয়টি সুরাহা হয়ে যাবে।

তারা নিতে পারবেন চ‚ড়ান্ত সিদ্ধান্ত।
এফটিপি অনুযায়ী আগামী মাসে দুই টেস্ট ও তিন টি-টোয়েন্টির সিরিজ খেলতে পাকিস্তানে যাওয়ার কথা বাংলাদেশের। কিন্তু নিরাপত্তার কারণে সে সফর হবে কিনা তা নিয়ে আছে অনিশ্চয়তা। নিরাপত্তার ছাড়পত্র পেতে তাই সরকারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছে বোর্ড।

সরকারের কাছে তাদের করা আবেদন ইতিবাচক দিকে মোড় নিচ্ছে বলে ধারণা করছেন বিসিবি সভাপতি, ‘আমরা নিরাপত্তার ব্যাপারে সরকারের কাছে যে আবেদন করেছিলাম, নিরাপত্তা ব্যবস্থার ব্যাপারে ছাড়পত্র পাব কিনা। সেটা নিয়ে (চিঠি) পাঠিয়েছিলাম। এর আগে মেয়েদের দল গিয়েছে, অন‚র্ধ্ব-১৬ দল গিয়ে খেলে এসেছে।

জাতীয় দলের ছাড়পত্র এখনো আমরা পাইনি। যদিও সিকিউরিটির ব্যাপারে জিজ্ঞেস করেন সেটা অন‚র্ধ্ব-১২ হোক, জাতীয় দল হোক নিরাপত্তা নিরাপত্তাই। সবার জন্য একই হওয়ার কথা। তাই আমরা ধরে নিচ্ছি সম্ভাবনা আছে আমরা নিরাপত্তা ছাড়পত্র পেয়ে যাব।’

পাকিস্তানের নিরাপত্তা খতিয়ে দেখতে সরকারের একটি দল পাকিস্তান ঘুরে এসেছে। সব মিলিয়ে বিসিবি প্রধানের আসা শীঘ্রই ছাড়পত্র হাতে আসবে তাদের, তবে ছাড়পত্র পাওয়ার পরই সফর নিশ্চিত হচ্ছে না, ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাপ করে তবেই সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড ‘সরকারের প্রতিনিধিরা গিয়েছেন, দেখেছেন।

সেক্ষেত্রে আমরা আমরা আশা করছি যেকোনো দিন ছাড়পত্র পেয়ে যাব। পাওয়ার পর বলতে পারব আমাদের সিদ্ধান্তটা কী। কারণ এখানে একটা হচ্ছে সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স। পরবর্তীতে বড় প্রশ্ন আছে খেলোয়াড়দের। তাদের মতামতও এখানে গুরুত্বপ‚র্ণ কে যেতে চাবে কী চায় না।

এখানে অনেকগুলো ব্যাপার আছে। বোর্ডের সিদ্ধান্তের ব্যাপার আছে। সবমিলিয়ে সবকিছু প্রায় শেষের দিকে আছে। নিরাপত্তা ছাড়পত্র পাওয়ার পরই আমরা বসব। আশা করছি আগামী ৩-৪ দিনের মধ্যে এটার একটা সিদ্ধান্ত নিতে পারব।’

নিরাপত্তার কারণে কোন ক্রিকেটার বা কোচ যদি পাকিস্তান সফরে না যেতে চান তাহলে বিসিবি জোর করবে না বলেও জানান বোর্ড প্রধান, ‘এটা তো জোর করার কিছু নেই। বোর্ড থেকে কাউকে জোর করে পাঠানো হবে না। এটা হল এখন পর্যন্ত আমাকে যদি জিজ্ঞেস করেন আমার চিন্তা। কাউকে জোর করে পাঠানোর কোনো প্রশ্নই ওঠে না।’

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More

Privacy & Cookies Policy